হিসাববিজ্ঞান বিভাগ

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা মহানগরীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত শতাব্দী প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ ইডেন মহিলা কলেজ। সবুজ শ্যামলিমায় ঘেরা এ বিদ্যাপীঠের ব্যবসায় শিক্ষা শাখার একটি অন্যতম বিভাগ হচ্ছে হিসাববিজ্ঞান। যা আপন মহিমায় ভাস্বর। বাণিজ্যিক বিশব এবং বিশ্বায়নের ধারণা  ব্যবসায় শিক্ষার গুরুত্ব এবং প্রয়োজনীয়তাকে বাড়িয়েছে বহুগুণ। এর ধারাবাহিকতায় এ কলেজে ১৯৮১ সালে একাদশ বাণিজ্য শ্রেণিতে, ১৯৯২-৯৩ শিক্ষাবর্ষে সম্মান কোর্সে হিসাববিজ্ঞান বিষয়ে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হয়। চাহিদার আলোকে ১৯৯৪-৯৫  শিক্ষাবর্ষে শুরু হয় মাস্টার্স (প্রিলিমিনারী) কোর্সের পাঠদান। প্রথম পর্যায়ে সম্মান কোর্সে ছাত্রী সংখ্যা ছিল  মাত্র ৬০ জন। কলেজ প্রশাসনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা এবং ব্যাপক চাহিদার কারণে ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষে এ আসনসংখ্যা ৩০০ থেকে বৃদ্ধি  পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩০ এ। বর্তমানে মোট শিক্ষার্থী আছে প্রায় ৩০০০। এ বিপুল সংখ্যক ছাত্রীর পাঠদানে বর্তমানে নিয়োজিত আছেন  ০৬ জন শিক্ষক, যা প্রয়োজনের তুলনায় যথেষ্ট নয়। এ বিভাগের কার্যক্রম অত্যন্ত আন্তরিকতা, দক্ষতা এবং সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশে শ্রদ্ধেয় অধ্যক্ষ এবং উপাধ্যক্ষ মহোদয়ের পরামর্শ এবং নির্দেশনা অনুযায়ী সুসম্পন্ন করা হয়। রুটিন অনুযায়ী মাল্টিমিডিয়ায় পাঠদান, নিয়মিত ইনকোর্স , টিউটোরিয়াল ও নির্বাচনী পরীক্ষা  গ্রহণ এ বিভাগের অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য। যার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে চূড়ান্ত পরীক্ষার ফলাফলে। সকলের আন্তরিক সহযোগিতায় একটি বিভাগকে যে সার্বিক সুন্দর করা যায় এ কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগ তারই প্রতিচ্ছবি।  

২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স (শেষবর্ষ) পরীক্ষায় এ বিভাগের ৩৯০ জন ছাত্রী প্রথম শ্রেণী অর্জন করে। এছাড়া ৪ বছর মেয়াদী সম্মান কোর্সের ২০১২ সালের চূড়ান্ত পরীক্ষায় এ বিভাগের ১৩৩ জন ছাত্রী প্রথম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হয়।  তাছাড়াও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাক্রমের প্রথম ২০জনের বেশির ভাগই হিসাববিজ্ঞান বিভাগের দখলে থাকে।

লেখাপড়ার পাশাপাশি এ বিভাগের ছাত্রীরা সহপাঠ্য কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে আসছে। ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক সপ্তাহসহ বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক দিবসে তাদের উপস্থিতি উজ্জ্বল ও স্বতঃস্ফূর্ত।  ছাত্রীদের লেখাপড়ার জন্য রয়েছে একটি সেমিনার, সেমিনারে সংগ্রহ করা হয় পর্যাপ্ত সংখ্যক সর্বশেষ সংস্করণের পাঠ্যবই, প্রয়োজনীয় ম্যাগাজিন ও দৈনিক পত্রিকা।