কলেজের ইতিহাস

বাংলাদেশের  নারীদের শিক্ষাব্যবস্থায় প্রায় দেড়শো বছরের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও অগ্রগতিকে ধারণ করে যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি দেশে অপ্রতিদ্বন্দ্বী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে তা হচ্ছে ইডেন মহিলা কলেজ । শিক্ষা, সংস্কৃতি আর প্রগতিতে এ প্রতিষ্ঠানটি কেবল অগ্রণী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে তা নয়-এটি বাংলাদেশের মধ্যে আজ শ্রেষ্ঠত্বের মর্যাদায় আসীন । আর এরই ফলশ্রুতিতে ইডেন মহিলা কলেজ ২০১৫ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় র‍্যাংকিং-এ সারাদেশের মহিলা কলেজগুলোর মাঝে প্রথম স্থান, ঢাকা বিভাগের মাঝে প্রথম স্থান এবং জাতীয় পর্যায়ে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে ।

দীঘকালের গৌরবময় ইতিহাস ধারণ করে থাকা বাংলাদেশের মেয়েদের উচ্চ শিক্ষার প্রাণকেন্দ্র ও প্রগতিবাদী চিন্তাচেতনার মানসভূমি ইডেন মহিলা কলেজ আজ স্বমহিমায় উজ্জ্বল । ১৮৭৩ সালে নারী শিক্ষাথীদের প্রত্যয়ী ও আত্ননিভরশীল হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে তৎকালীন গভর্নর স্যার এ্যাশলে ইডেনের নামানুসারে প্রতিষ্ঠিত ইডেন গালস স্কুলটি ছিল আসাম ও বাংলার শ্রেষ্ঠ স্কুল্গুলোর অন্যতম। নারী শিক্ষা প্রসারে বিদ্যাপীঠ ঐতিহ্যবাহী ইডেন মহিলা কলেজ বেশ কয়েকবার

স্থান পরিবর্তন এর পর ১৯৬২ সালে বর্তমান অবস্থানে(অজিমপুর ও পলাশীর সংযোগ স্থলে) স্থায়ী অবয়ব প্রাপ্ত হয়। বর্তমানে কলেজের মোট ছাত্রী সংখ্যা প্রায় ৩৫ হাজার। কলেজে ২৩টি বিষয়ে চার বছর মেয়াদী সম্মান কোর্স , স্নাতক (পাস) এবং এক বৎসর মেয়াদী স্নাতকোত্তর প্রথম পর্ব ও স্নাতকোত্তর শেষ পর্ব কোর্স চালু আছে । শিক্ষকদের মেধা, আন্তরিকতা, কর্মনিষ্ঠা এই কলেজের বিষয়ভিত্তিক জ্ঞানচর্চাকে করেছে সমৃদ্ধ। কলেজটিতে রয়েছে দুতলা বিশিষ্ট ও মান সম্মত বৃহৎ গ্রন্থাগার যেখানে সান্ধাকালীন লেখাপড়ারও সুযোগ রয়েছে । ভিশন-২০২১ ও ২০৪১ কে সামনে রেখে ছাত্রীদের জন্য ICT বিভাগ খোলা হয়েছে। যেখানে রয়েছে তিনটি আধুনিক ও উন্নত কম্পিউটার ল্যাব। ছাত্রীদের আবাসন সুবিধার জন্য এ কলেজে রয়েছে এশিয়ার সর্ববৃহৎ ( ১১ তলা বিশিষ্ট ) হোস্টেল ভবনসহ ছয়টি আবাসিক হোস্টেল, জরুরি প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবার জন্য চিকিৎসাকেন্দ্র ও মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে শিক্ষাথীদের যাবতীয় ফি পরিশোধের ব্যাবস্থা। বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশক্রমে পাঠোন্নয়নের লক্ষো ঢাকার সাতটি কলেজের সাথে ইডেন কলেজও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালইয়ের অধিভুক্ত কলেজ হিসেবে কার্যক্রম শুরু করেছে । যা আমাদের শিক্ষাথীদের পাঠ কার্যক্রম উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে । এছাড়া অধিভূক্ত সাতটি কলেজের জন্য একটি ওয়েবসাইটও সম্প্রতি উদ্ধোধন করা হয়েছে। ওয়েবসাইটটি হচ্ছে- www.7college.du.ac.db শিক্ষাথীদের মেধা ও মননকে প্রসারিত করার লক্ষে কলেজে কয়েকটি বিশেষ কর্ম প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে পুরো কলেজ ক্যাম্পাসে Wi-Fi সংযোগ প্রদান । যার মধ্যে দিয়ে আমাদের শিক্ষক-শিক্ষাথীদের সামনে বিশ্বের বিশাল তথ্য ভান্ডারে প্রবেশের দুয়ার উন্মুক্ত হয়েছে । যা তাদের চিন্তার জগতকে বিস্তৃত ও জ্ঞানের দিগন্তকে প্রসারিত করার সুযোগ সৃষ্টি করেছে । একই সাথে আউট সোসিং এর মাধ্যমে আর্থনৈ্তিক ভাব স্বাবলম্বী হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া শিক্ষাথীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষো কলেজের ১ ও ২ নম্বর গেটে আর্চওয়ে স্থাপন করা হয়েছে । ইতোমধো কলেজে বেশ কিছু সময়োপযোগী কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে । এগুলোর মধ্য রয়েছে জাতির জনক জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক ও অর্থনৈ্তিক দর্শন নতুন  প্রজন্মের নিকট পৌঁছে দেওয়ার লক্ষে তার কর্মময় জীবনভিত্তিক স্থিরচিত্র প্রদশনী, কলেজের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে বাংলাদেশের আভুদয়ের ইতিহাস ও ঐতিহ্যভিত্তিক চিত্র ও গ্রন্থ সংগ্রহশালা ‘চিরন্তন বাংলা’, কলেজের ১ ও ২ নম্বর গেটের মধ্যবতী দেওয়ালগাত্রে মহান ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে নারীদের গৌরবময় ভূমিকা ও ইতিহাস সম্বলিত দৃষ্টিনন্দন ম্যুরালসমূহ, কলেজের সামনে বিউন্ডারি প্রাচীরে বিভিন্ন মনীষীর স্মরণীয় বাণী লিখন, রাত্রিরে পুরো কলেজ ক্যাম্পাসে সোডিয়াম বাতি সংযোজন, বিভিন্ন ভবনে যাতায়াতের জন্য মধ্যবর্তী রাস্তাসমূহ সংস্কার, শ্রেণীকক্ষে ও ছাত্রীনিবাস সমূহে জরুরী ভিত্তিতে ফ্যান সংযোজন, পুরো কলেজে অন্তঃটেলিযোগাযোগ ব্যাবস্থার সংস্কার, আইসিটি ল্যাব কলেজের সকল শিক্ষকের জন্য বাধ্যতামূলক ইন হাউজ কম্পিউটার ট্রেনিং এর ব্যবস্থা, কলেজে শিক্ষার পরিবেশকে ডিজিটালাইজড করার লক্ষে প্রশাসনিক ভবনে ডিজিটাল নোটিশ বোর্ড , ইলেক্ট্রিক ঘন্টা, অধিকাংশ শ্রেণীকক্ষে স্মাট বোর্ড, মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরে পাঠদান, পুরো ক্যাম্পাসে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া শিক্ষক ও শিক্ষাথীদের শারীরিক সুস্থতার লক্ষে দুটি জিমনেসিয়ম স্থাপন করা হয়েছে। প্রশাসনিক ভবন, মেডিকেল সেন্টার, শিক্ষক মিলনায়তন, সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র ছায়াবীথি ও মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি গ্যালারি ইত্যাদি স্থাপনার ব্যাপক সংস্কারের মাধ্যমে নবরূপায়ন করা হয়েছে।  বিজ্ঞান শিক্ষা অধিকতর সুচারুভাবে পাঠদানের লক্ষে, বিজ্ঞান-অনুষদের প্রতিটি বিভাগের ল্যাবগুলোর উন্নয়নের লক্ষে ব্যাপক সংস্কার কর্মসূচি গ্রহন করা হয়েছে। এই কর্মসূচির  অধীনে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে GIS RS ল্যাবগুলো চালু করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সম্প্রতি চিকুনগুনিয়া ব্যাপক হারে মানুষ আক্রান্ত হওয়ার প্রেক্ষিতে গনসচেতনা সৃষ্টির লক্ষে নানা সচেতনামূলক বাণী সম্বলিত ফেস্টুন-প্লেকাড ও ব্যানারসহ অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ মহোদের নেতৃ্ত্ব কলেজে র‍্যালির আয়োজন করা হয়। গ্রীন ক্যাম্পাস আমাদের এই ইডেন কলেজের প্রাকৃতিক পরিবেশেকে সু-স্বাস্থের সহায়ক বৃক্ষে পূণ করতে বিরল প্রজাতির ওষধীগাছ রোপন ও যথাযথ ভাবে সংরক্ষণের জন্য মাঠে স্থান নির্ধারণ করার সিদ্ধান্ত বর্তমান প্রশাসন গ্রহন করেছেন । যা ব্যাপক দূষণ আক্রান্ত এই শহরে একটি দৃষ্টান্ত হয়ে উঠবে বলেই আমাদের বিশ্বাস এবং আমাদের শিক্ষাথীদের দেহ ও মনেও ফেলবে ইতিবাচক প্রভাব। কলেজের পরীক্ষার হল ভবন নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যার মধ্য দিয়ে পরীক্ষাচলাকালে ক্লাস বিঘ্নিত হওয়ার দীর্ঘ দিনের সমস্যার সমাধান হবে। বর্তমান প্রায় ব্যাবহার অনুপযোগী আডিটোরিয়ামটি ভেঙ্গে একটি আধুনিক অডিটোরিয়াম নির্মাণের কাজটিও প্রক্তিয়াধীন রয়েছে। বিষয়ভিত্তিক জ্ঞানচর্চার পাশাপাশি সাংবাৎসরিক কার্যক্রমের আওতায় কলেজে উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে বিভিন্ন জাতীয়, আন্তজাতিক ও ধর্মীয় উৎসব যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর এর সাথে পালন করা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ২০শে আগষ্ট ২০১৭ আয়োজিত আলোচনা সভায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম নাহিদ, এমপি এর আগমন ইডেন কলেজের ঐতিহো্র মুকুটে যুক্ত করেছে আরেকটি গৌ্রবের পালক।

প্রায় ৩৫ হাজার শিক্ষাথীর পদচারণায় মুখরিত ইডেন মহিলা কলেজের শিক্ষাথীরা ডিগ্রী(পাস), অনার্স এবং মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করে জ্ঞান ও প্রজ্ঞার অপার মহিমায় উদ্ভাসিত হয়ে দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বাথে আত্ননিয়োগ করেছে, সমাজের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে এক নতুন আলোর দীপ্তশিখা। নতুন নতুন উদ্ভাবনী শক্তি দিয়ে এ অলোকবাতিকা উজ্জলতর হোক পুরো সমাজ, দেশ ও জাতি; শিক্ষাথীদের নিকট এটাই সকলের প্রত্যাশা ।

সাধারণ জ্ঞাতব্য

নাম : ইডেন মহিলা কলেজ
নাম (ইংরেজী) : Eden Girls' College
প্রতিষ্ঠিত : ১৯২৬ (একটি স্কুল হিসেবে ১৮৭৩)
ধরণ : Govt. University College
অবস্থান :

আজিমপুর, লালবাগ, ঢাকা -১২০৫

সীমানা : উত্তর এ হোম অর্থনীতি কলেজ, দক্ষিণে পলাশী, পূর্ব এ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, সরকার পশ্চিম এ অফিসারের চত
মোট জমি : ১৮ একর
হোস্টেল সংখ্যা :
প্রশাসনিক এবং একাডেমিক ভবন :
অডিটোরিয়াম :
ক্লাস রুমের সংখ্যা : ৭২
ল্যাবরেটরি সংখ্যা : ২৮
কোর্সের স্তর : স্নাতক (পাস), স্নাতক (সম্মান), এবং স্নাতকোত্তর
বিভাগ সংখ্যা : ২৩
ছাত্রী সংখ্যা : ৩৫,০০০ (প্রায়)
সহশিক্ষা কার্যক্রম : বিজ্ঞান ক্লাব, শারিরিক শিক্ষা, বিএনসিসি, রোভার স্কাউট, ছায়াবিথী, তাইকোয়ান্ডো, বাধন, বিতর্ক
কম্পিউটার ল্যাবরেটরি :
কম্পিউটারের সংখ্যা : ৫০ (Including Lab and Department)
অন্যান্য প্রতিষ্ঠান : মাঠ - ০১, পুকুরে - ০১, মনুমেন্ট - ০১, গেস্ট রুম - ০১, ব্যাংক -০১ (০১ ই.এন.সি. বুথ, এবং ০১ এ.টি.এম. বুথ), উপ-ডাক অফিস -১০১ (প্রস্তাবিত), ক্যান্টিন -১০১, আই.সি.টি. ল্যাব - ০২ (কম্পিউটারের সংখ্যা - ৪২)
উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন ছাত্র : শেখ হাসিনা, প্রীতিলতা ওয়াদ্দার
উল্লেখযোগ্য অনুষদ : সিদ্দিকা কবীর