দর্শন বিভাগ

‘‘ইডেন মানে স্বর্গ’’ এশিয়া মহাদেশে বিশেষ করে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে নারী শিক্ষার বিস্তার ও প্রসারে ইডেন মহিলা কলেজ একটি ব্যতিক্রমি অন্যতম বিদ্যাপিঠ। নারী শিক্ষার অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার চিন্তা, চেতনা, সাধনা ও উচ্চ মূল্যবোধ অর্জনের প্রতিফলন ঘটানোর ক্ষেত্রে ইডেন মহিলা কলেজ একটি ‘‘মাইলফলক’’ হিসাবে চিহ্নিত ও বিবেচিত হয়েছে বলে আমার বিশ্বাস। শিষ্টাচার ও জ্ঞানানুরাগের এবং নারী শিক্ষার বিস্তারে ইডেন কলেজ এক উজ্জল আলোকবর্তিকা স্বরূপ। ইডেন মহিলা কলেজ সঠিক বিস্তার ও জ্ঞানপিপাসু মানুষের আশা-আকাঙ্খার কেন্দ্রবিন্দু হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে। দর্শন বিভাগ ইডেন কলেজের মূল স্রোতধারার একটি বড় অংশের দাবীদার। ১৮৭৩ সনে স্কুল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ১৯২৬ সনে ইন্টারমেডিয়েট কলেজ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করে ও পরবর্তীতে ডিগ্রি স্তরে ও উন্নীত হয়। তখন থেকে যুক্তিবিদ্যা ও দর্শন বিষয়ে পাঠদানের সূচনা হয়। দর্শনের অধ্যাপক সাকিনা আজহারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ১৮৮৫-৮৬ শিক্ষা বর্ষে অনার্স কোর্স শুরুর মধ্য দিয়ে এবং ১৯৮৮ সনে তৎকালীন বিভাগীয় প্রধান মুহাম্মদ আবদুল বারীর চেষ্টায় এ বিভাগে সণাতকোত্তর কোর্স চালু হয়। বর্তমানে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে দর্শন বিভাগে ছাত্রী সংখ্যা প্রায় ১৩০০।    

বিভাগের শিক্ষকদের নিরলস চেষ্টা ও শ্রমের ফলে দর্শন বিভাগের ছাত্রীরা কৃতিত্ব অর্জন করে আসছে। শুধু লেখা পড়াতেই সীমিত নয় এ বিভাগের ছাত্রীরা খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা এবং কলেজের বিভিন্ন কর্মকান্ডে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখে আসছে।

দর্শন বিভাগে ১২টি পদ থাকার কথা থাকলেও বাস্তবে আছে ৭টি পদ যা বিভাগের কর্মকান্ডের তুলনায় নিতান্তই অপ্রতুল। ঐতিহ্যমন্ডিত এ বিভাগে রয়েছে বহু দুর্লভ বই সমন্বিত একটি সেমিনার যেখানে শিক্ষার্থীদের  জ্ঞানচর্চার নির্মল পরিবেশ বিদ্যমান।